বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০

কলপোস্কোপি: যৌনাঙ্গের ভালভা, জরায়ু এবং যোনি পরীক্ষা

জীবন যাপন আগস্ট ২৫, ২০২৩, ০৮:০১ পিএম
কলপোস্কোপি: যৌনাঙ্গের ভালভা, জরায়ু এবং যোনি পরীক্ষা

একটি কলপোস্কোপি হল একটি সাধারণ চিকিৎসা পদ্ধতি যা আপনার যৌনাঙ্গের ভালভা, জরায়ু এবং যোনি পরীক্ষা করার জন্য করা হয়ে থাকে। পদ্ধতিটি প্যাপ স্মিয়ার পরীক্ষার অনুরূপ হয়। এই পদ্ধতির জন্য ডাক্তার একটি আণুবীক্ষণিক  যন্ত্র ব্যবহার করেন যেটি কলপোস্কোপ নামে পরিচিত। সাধারণত, আপনার প্যাপ স্মিয়ার পরীক্ষার ফলাফল অস্বাভাবিক এলে সেক্ষেত্রে কলপোস্কোপি করা হয়।

পরীক্ষা করার পরেও যদি চিকিৎসা প্রক্রিয়া চলাকালীন আপনার ডাক্তার উক্ত স্থানটিতে অস্বাভাবিক কোষের বৃদ্ধি লক্ষ করেন, তাহলে অন্য পরীক্ষাগারে বায়োপসির মত পরীক্ষা পুনরায় করাতে হতে পারে।

কেন আমার একটি কলপোস্কোপি করা প্রয়োজন?

আপনার ডাক্তার যদি মনে করেন যে আপনার যোনি বা জরায়ুতে কেনো সমস্যা রয়েছে তাহলে আপনার ডাক্তার একটি কলপোস্কোপি করার পরামর্শ দিতে পারেন। আপনার কলপোস্কোপির প্রয়োজন কী জন্য হতে পারে তার অন্যান্য কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

  1. আপনার প্যাপ স্মিয়ার পরীক্ষার ফলাফল অস্বাভাবিক হলে।
  2. আপনার শ্রোণি পরীক্ষার ফলাফলে  অস্বাভাবিক জরায়ু দেখা গেলে।
  3. জরায়ুতে অকারণ  রক্তপাত এবং অন্যান্য সমস্যা।
  4. ভালভা, জরায়ু বা যোনিতে ক্যান্সার পূর্ববর্তী পরিবর্তন।
  5. শ্রোণিতে অস্বস্তি, মোচড় দেওয়ার অনুভূতি বা ব্যথা হলে।
  6. আপনার যৌনাঙ্গে আঁচিল বা  সারভিক্টিস (জরায়ুর প্রদাহ) থাকলে।

আপনার ডাক্তার কলপোস্কোপির ফলাফল পেয়ে গেলে জানতে পারবেন যে আরও পরীক্ষার প্রয়োজন আছে কিনা।

আপনি যদি আপনার ভালভা, যোনি বা জরায়ু সম্পর্কে অস্বাভাবিক কিছু দেখে থাকেন তাহলে অবিলম্বে কোনও সমস্যা আছে কিনা তা নির্ধারণ করার জন্য একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

কিভাবে একটি কলপোস্কোপির জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে?

কলপোস্কোপি প্রক্রিয়ার জন্য খুব বেশি প্রস্তুতির প্রয়োজন পড়ে না। যদিও কলপোস্কোপির প্রস্তুতির সময় কিছু জিনিস যেগুলি মনে রাখা দরকার:

>> আপনার ডাক্তারের সাথে প্রক্রিয়াটি বিস্তারিতভাবে আলোচনা করুন।

>> আপনার ঋতুস্রাবের ঠিক আগে বা ঋতুচক্র চলার সময়কালে কলপোস্কোপি প্রক্রিয়াটি শুরু করবেন না।

>> প্রক্রিয়া শুরুর কয়েক দিন আগে থেকে ট্যাম্পুন এবং যোনিদ্বার দিয়ে গ্রহণ করা হয় এমন সব ওষুধের ব্যবহার করবেন না।

>> প্রক্রিয়ার আগের ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টা যৌন মিলন এড়িয়ে চলুন।

>> আপনার ডাক্তার একটি নিমেষে ব্যথা উপশমকারী ওষুধের সুপারিশ করতে পারেন, যেমন অ্যাসিটামিনোফেন বা আইবুপ্রোফেন। প্রক্রিয়ার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করুন।

>> কলপোস্কোপির আগে আপনার অন্ত্র এবং মূত্রাশয় যাতে খালি হয় সেদিকে নজর রাখবেন কেন না এর ফলে আপনি আরাম অনুভব করতে পারবেন।

বহু মহিলা তাদের কলপোস্কোপির আগে উদ্বেগ অনুভব করেন। যে কারণে ঘুম, মনোযোগ বা প্রক্রিয়াটি সম্পর্কে ভয় সৃষ্টি হতে পারে ও অসুবিধা হতে পারে। যেসব মহিলারা প্রক্রিয়াটির আগে উদ্বিগ্ন অনুভব করেন তারা তাদের কোলপোস্কোপি চলাকালীন বেশি ব্যথা অনুভব করেন, যারা আগে থেকে চিন্তান্বিত ছিলেন না এমন মহিলাদের তুলনায়। আপনি আপনার ডাক্তারের কাছে প্রক্রিয়াটি সম্পর্কে আপনার উদ্বেগ এবং ভয় প্রকাশ করতে পারেন।

কলপোস্কোপি নিয়ে আপনার  উদ্বেগ এবং ভয় মোকাবিলাতে আপনাকে সাহায্য করার জন্য নীচে কয়েকটি জিনিস বলা হল:

কলপোস্কোপি প্রক্রিয়া সম্পর্কে আপনার জিজ্ঞাস্য  সমস্ত প্রশ্ন এবং আশঙ্কা বিষয়ে একটি তালিকা তৈরি করে আপনার অ্যাপয়েন্টমেন্টের আগেই ডাক্তারের সঙ্গে সেগুলি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করুন।

প্যামফলেট এবং ব্রোশারের প্রয়োগ সম্পর্কে প্রক্রিয়া শুরুর আগেই আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করে জেনে নিন। এই সংক্রান্ত লিখিত তথ্য ডাক্তারের কাছ থেকে সংগ্রহ করুন ও প্রক্রিয়া শুরুর আগে সেগুলি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পড়ুন।

ধ্যান, যোগব্যায়াম বা ব্যায়ামের মতো ক্রিয়াকলাপগুলি অনুশীলন করুন যা আপনাকে শারীরিক আরাম পেতে সহায়তা করবে।

কলপোস্কোপি পদ্ধতি চলাকালীন গান শুনলে মহিলারা কম উদ্বিগ্ন অনুভব করেন। আপনার মনকে অন্যদিকে রাখার জন্য প্রক্রিয়াটি চলাকালীন আপনি শান্তভাবে গান শুনতে পারেন কিনা তা আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করে নিন ও এ বিষয়টিতে সিদ্ধান্ত নিন।

কলপোস্কোপিতে কী যন্ত্রণা হয়?

সাধারণত কলপোস্কোপিএকটি ব্যথাহীন পদ্ধতি। ডাক্তার যখন আপনার যোনিতে স্পিকুলাম ঢুকিয়ে দেন সেইসময় আপনি কিছুটা চাপ অনুভব করতে পারেন। ডাক্তার যখন ভিনেগারের জাতীয় দ্রবণ ব্যবহার করেন তখন আপনি সামান্য জ্বালা অনুভব করবেন। যদি বায়োপসি করা হয় তখন আপনি সামান্য অস্বস্তি এবং ব্যথা অনুভব করতে পারেন।

কিভাবে একটি কলপোস্কোপি করা হয়?

১. কলপোস্কোপি একটি সহজ পদ্ধতি যা প্রায় ১০ থেকে ২০ মিনিট পর্যন্ত সময় নেয়। এটি সাধারণত ডাক্তারের চেম্বারে করা হয়। এর জন্য কোনো চেতনানাশক প্রয়োজন হয় না। কলপোস্কোপি করার ক্ষেত্রে আপনি যা আশা করতে পারেন সেগুলি হল:

২. ডাক্তার আপনাকে টেবিলে শুতে বলবেন সেভাবেই যেভাবে শ্রোণি পরীক্ষার সময় শোওয়া হয়।

৩. ডাক্তার তারপর আপনার যোনিতে একটি স্পিকুলাম রাখবেন যেটি যোনির দেয়ালকে খোলা রাখতে সাহায্য করবে যাতে আপনার জরায়ু দৃশ্যমান হয়।

৪. ভিনেগারের একটি দ্রবণ ব্যবহার করে এরপর ডাক্তার একটি তুলো  দিয়ে আপনার যোনি এবং জরায়ুমুখে নমুনা সংগ্রহ করবেন। এটি সেইস্থান থেকে শ্লেষ্মা অপসারণ করাতেও সাহায্য করে। দ্রবণটি দেওয়ার ফলে সামান্য জ্বালা করতে পারে।

৫. ডাক্তার পরীক্ষার জন্য আপনার ভালভা থেকে কয়েক ইঞ্চি দূরে কলপোস্কোপ স্থাপন করবেন ও কলপোস্কোপ লেন্সের মাধ্যমে আপনার যোনিতে পরীক্ষা করবেন।

৬. কলপোস্কোপ আপনার শরীর স্পর্শ করবে না। প্রয়োজনে ডাক্তার আরও পরীক্ষার জন্য আপনার যোনির ছবিও তুলতে পারেন।

৭. যদি কোনো স্থান সন্দেহজনক বলে মনে হয় তখন ডাক্তার বায়োপসির জন্য একটি নমুনা নিতে পারেন।

৮. একবার নমুনা সংগ্রহ হয়ে গেলে ডাক্তার রক্তপাতের জন্য একটি ওষুধ প্রয়োগ করবেন।

কলপোস্কোপির সময় বায়োপসি

যদি ডাক্তার কলপোস্কোপির সময় অস্বাভাবিক কোষের বৃদ্ধি খুঁজে পান সেক্ষেত্রে আরো পরীক্ষার জন্য বায়োপসি করা হতে পারে। অস্বাভাবিক কোষের নমুনা সংগ্রহ করতে ডাক্তার একটি ধারালো বায়োপসি যন্ত্র বা টুল ব্যবহার করতে পারেন। যে স্থানটির পরীক্ষা হচ্ছে তার অবস্থানের উপর নির্ভর করে পরীক্ষার পদ্ধতিটি ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে।

সার্ভিকাল বায়োপসি

কলপোস্কোপি সাধারণত ব্যথাহীন কিন্তু সার্ভিকাল বায়োপসি কিছু মহিলাদের ক্ষেত্রে হালকা ব্যথা, অস্বস্তি বা রক্তপাতের কারণ হতে পারে। বায়োপসির ৩০ মিনিট আগে ডাক্তার একটি হালকা ব্যথা উপশমকারী ওষুধ দিতে পারেন।

যোনির বায়োপসি

যোনির বেশিরভাগ অংশে সামান্য সংবেদন হয়ে থাকে। বায়োপসি করার সময় হয়ত আপনি কোনো ব্যথা অনুভব করবেন না  কিন্তু যোনি বা ভালভা নীচের অংশের বায়োপসি ব্যথা বা অস্বস্তির সৃষ্টি  করতে পারে। ডাক্তার বায়োপসি করার আগে ওই স্থানটিকে অসাড় করার জন্য স্থানভিত্তিক চেতনানাশক ব্যবহার করতে পারেন।

কলপোস্কোপির সাথে সম্পর্কিত ঝুঁকিগুলি কী কী?

কলপোস্কোপি একটি নিয়মিত প্রক্রিয়া এবং এটি খুবই কম ঝুঁকিপূর্ণ। প্রক্রিয়া পরবর্তী  জটিলতাগুলিও বিরল।

একবার প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হওয়ার পর ডাক্তার রক্তপাত বন্ধ করতে আপনার জরায়ুর উপর একটি তরল ব্যান্ডেজ প্রয়োগ করবেন। পরবর্তী কয়েক দিনের জন্য আপনি একপ্রকার বাদামী বা লালচে-বাদামী যোনি স্রাব লক্ষ্য করতে পারেন বা এটি কফি গুঁড়োর মতোও দেখতে লাগতে পারে। সাধারণত, পদ্ধতির কয়েক দিন পরে এই স্রাবের রং পরিষ্কার বা স্বাভাবিক হয়ে থাকে।

আপনি যদি নিম্নলিখিত সংক্রমণের লক্ষণগুলি লক্ষ্য করেন তবে অবিলম্বে আপনার ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করুন:

  • প্রচন্ড জ্বর ও ঠান্ডা লাগা।
  • সাত দিনের বেশি সময় ধরে যোনিপথে রক্তপাত।
  • তলপেটে চরম ব্যথা যা ব্যথানাশক ওষুধ দিয়েও কম করা যায় না।
  • দুর্গন্ধযুক্ত, মোটা এবং হলুদাভ বর্ণের যোনি স্রাব।

কলপোস্কোপি পরীক্ষাগুলি ভুল হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে।  কিছু ক্ষেত্রে ডাক্তার দ্বারা  সম্পূর্ণরূপে অপসারণের পরেও অস্বাভাবিক কোষগুলি ভবিষ্যতে আবার বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। এই কারণেই ডাক্তাররা নিয়মিত চেকআপ এবং প্যাপ স্মিয়ার পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন যাতে আপনার জরায়ু এবং যোনি ঠিক থাকে এবং কোন অস্বাভাবিক কোষ না সৃষ্টি হয়।

কলপোস্কোপি সম্পন্ন হওয়ার পর কী হবে?

প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর আপনি লক্ষ্য করবেন:

  • প্রায় তিন থেকে চার দিনের জন্য গাঢ় যোনি স্রাব।
  • কয়েক দিনের জন্য হালকা মোচড়ের মত ব্যথা ও
  • প্রায় এক সপ্তাহ ধরে অল্প রক্তপাত।
  • কলপোস্কোপির পরে আপনার যোনিতেও অল্প ব্যথা অনুভব হতে পারে।

আপনার যদি বায়োপসি না হয় তাহলে আপনি এখনই স্বাভাবিক ক্রিয়াকলাপ পুনরায় শুরু করতে পারেন।

আপনার যদি বায়োপসি হয়ে থাকে তবে কয়েক দিনের জন্য যোনি ক্রিম, সুগন্ধি যোনি পণ্য এবং ট্যাম্পুন ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। প্রায় এক সপ্তাহ পর্যন্ত যৌন মিলন করবেন না। পদ্ধতি সম্পর্কে আপনার কোন উদ্বেগ এবং ভয় থাকলে তা নিয়ে আপনার ডাক্তারের সাথে আলোচনা করুন।

কলপোস্কোপির ফলাফল:

কলপোস্কোপির পর ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করুন আপনি কখন ফলাফল পেতে পারেন। ফলাফল পাওয়ার পর আপনার আরও পরীক্ষা বা চিকিত্সা প্রয়োজন কিনা তা ঠিক করবে।

বায়োপসি ফলাফল আপনার ভালভা, যোনি বা জরায়ুর অস্বাভাবিক কোষ নির্ণয় করতে সাহায্য করে। ফলাফলের উপর ভিত্তি করে ডাক্তার প্রয়োজনে আরও পরীক্ষার সুপারিশ করতে পারেন। যদি বায়োপসি ফলাফল আপনার যোনিতে প্রাক-ক্যান্সারাস বা ক্যান্সারযুক্ত কোষ দেখায় তাহলে আপনার আরও চিকিৎসার প্রয়োজন আছে।

 অস্বাভাবিক কোষগুলি অপসারণ করতে ডাক্তার সুপারিশ করতে পারেন:

ক্রায়োথেরাপি

এতে তরল গ্যাস যোনি বা জরায়ুর অস্বাভাবিক কোষগুলিকে হিমায়িত করতে ব্যবহৃত করা হয়।

কোন্ বায়োপসি

এর দ্বারা অস্বাভাবিক কোষের টিস্যুর একটি শঙ্কু-আকৃতির টুকরো জরায়ুর মুখ থেকে সরানো হয়।

লুপ ইলেক্ট্রোসার্জিক্যাল এক্সিশন পদ্ধতি (এলইইপি)

একটি তারের লুপ ব্যবহার করে অস্বাভাবিক কোষগুলি সরানো হয়, তারটি বৈদ্যুতিক প্রবাহও বহন করে।

শেষে জরুরি কয়েকটি কথা:

একটি কলপোস্কোপি হল একটি সহজ পদ্ধতি যা ডাক্তারকে ভালভা, যোনি বা জরায়ুর  অনেক সমস্যা নির্ণয় করতে সাহায্য করে। কলপোস্কোপির এর সাথে সম্পর্কিত ঝুঁকি এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া অত্যন্ত বিরল। বেশিরভাগ মহিলা এই পদ্ধতির ফলে কোনও জটিলতা বা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার শিকার হন না।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নসমূহ (FAQs)

কলপোস্কোপি কি ক্যান্সার শনাক্ত করতে পারে?

কোলপোস্কোপিটি ভালভা, যোনি বা জরায়ুর পরীক্ষা করার জন্য করা হয়। পদ্ধতি কোনো অস্বাভাবিক ক্যান্সার পূর্ববর্তী বা ক্যান্সার কোষ সনাক্ত করতে পারে। ভালভার ক্যান্সার, যোনি ক্যান্সার, শ্রোণির ক্যান্সার, এবং যৌনাঙ্গের আঁচিলগুলিও কলপোস্কোপির মাধ্যমে নির্ণয় করা যেতে পারে।

একটি কলপোস্কোপির পরে আপনি কোন কাজগুলি করতে পারবেন না?

কলপোস্কোপির পরে প্রায় ২৪ ঘন্টা সময় নিন এবং ভারী কাজ এড়িয়ে চলুন. পাশাপাশি যৌন মিলনে লিপ্ত হবেন না। ট্যাম্পুন, যোনি ক্রিম জাতীয় পণ্য এবং ডুচ ব্যবহার করবেন না।

কলপোস্কোপি কি ভবিষ্যতের গর্ভাবস্থাকে প্রভাবিত করে?

যাদের কোলপোস্কোপি করা হয়েছে এবং যাদের যোনিপথে অন্যান্য অস্ত্রোপচার করা হয়েছে তাদের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা একই থাকে। কোলপোস্কোপি ভবিষ্যতের গর্ভাবস্থাকে প্রভাবিত করে না।

বায়োপসি ফলাফল অস্বাভাবিক এলে কী হবে?

বায়োপসি পরীক্ষা যোনি বা জরায়ু থেকে নেওয়া কলার নমুনায় ক্যানসার পূর্ববর্তী  বা ক্যান্সারযুক্ত কোষের সন্ধান করে থাকে। যদি নমুনায় ক্যান্সার কোষ পাওয়া যায়, তবে ডাক্তার আপনাকে সেই স্থান থেকে অপসারণের জন্য আরো পরবর্তী চিকিৎসার পরামর্শ দেবেন।
সূত্র: হেলথ অ্যাপোলো

Side banner