বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১

রোজায় মুখে দুর্গন্ধ? জেনে নিন দূর করার উপায়

জীবন যাপন এপ্রিল ৬, ২০২২, ১১:৩৯ এএম
রোজায় মুখে দুর্গন্ধ? জেনে নিন দূর করার উপায়

চলছে পবিত্র রমজান মাস। টানা এক মাস গোটা বিশ্বের মুসলমানরা সুর্যাস্তের আগ থেকে সূর্যাস্তের পর পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকেন। রোজা মন এবং শরীরকে শুদ্ধ করে। রোজা স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। রোজা রাখলে রক্তে শর্করার মাত্রা, রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

রোজায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা উপবাস থাকতে হয়। পানি পান করা যায় না। এতে মুখে লালা নিঃসরণ কম হয়। লালা বা স্যালাইভার কাজ হলো দাঁতকে পরিস্কার রাখা, ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে রক্ষা করা, কথা বলতে সহায়তা করা। স্যালাইভা নিঃসরণ কম হলে দাঁত ক্ষয়, মাড়ির রোগ হতে পারে। লালাস্বল্পতার কারণে মুখে কিছু সমস্যা তৈরি হতে পারে। এর মধ্যে অন্যতম হলো মুখের শুস্কতা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, রোজার দিনে মুখের পিএইচের ভারসাম্য স্বাভাবিক রাখতে এবং মুখের ভেতর পরিস্কার ও স্বাস্থ্যকর রাখতে সহজ কিছু পদক্ষেপ নিতে পারেন। যেমন- সাহরি ও ইফতারের পর প্রতিদিন দু'বার ভালো করে ব্রাশ ও ফ্লস করুন। ইফতার থেকে সাহরি পর্যন্ত আট থেকে দশ গ্লাস পানি পান করুন।

মৌসুমি ফলের জুস, লেবুর শরবত, ডাবের পানি ও ভিটামিন-সি জাতীয় ফল খেতে চেষ্টা করুন। তবে, মুখ বেশি শুস্ক মনে হলে ডেন্টিস্টের পরামর্শ নিতে পারেন।

রোজা রাখলে মুখে দুর্গন্ধ হওয়া খুবই সাধারণ একটি সমস্যা। এ সময়টিতে মুখগহ্বর শুকনোভাব হয়। এটি দাঁত, মাড়ি, জিহ্বা, মুখগহ্বর কোনো কিছুর জন্যই স্বাস্থ্যকর নয়। মুখগহ্বর শুকনো থাকার কারণে মুখে বাজে গন্ধ হতে পারে। এ ছাড়া দীর্ঘ সময় অভুক্ত থাকায় জিহ্বার ওপর সালফারের প্রলেপ পড়ে। এ কারণেও মুখে বাজে গন্ধ হয়। আবার দাঁতের ফাঁকে জমে থাকা খাদ্যকণা পচে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে।

রোজায় মুখে দুর্গন্ধ দূর করার জন্য হাইড্রেশন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য সাহরি-ইফতারের সময় প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। ইফতারের সময় নোনতা, ভাজা, মিষ্টি এবং আঠালো খাবার এড়িয়ে চলুন। চিনির পরিমাণ বেশি আছে এমন খাবার বা পানীয় এড়িয়ে চলুন। এসব খাবার বা পানীয় ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিকে উদ্দীপিত করতে পারে, যার ফলে নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ হয়। রোজার দিন কফি, চা, সোডা এবং অন্যান্য ক্যাফিনযুক্ত পানীয় কমিয়ে দিন।

রোজা রাখা অবস্থায় মুখে পানি দিয়ে কুলি করতে পারেন। ইফতারের পর লালাগ্রন্থিগুলো সক্রিয় হয় এবং লালা উৎপাদন স্বাভাবিক হয়ে যায়। সাহরি ও ইফতারের পর জিহ্বা ব্রাশ করুন।ঘুমানোর আগে গোলাপ জল ব্যবহার করে কুলিকুচি করুন। পাশাপাশি ধূমপান, তামাক ও জর্দা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

রমজান মাসে মুখের দুর্গন্ধ নিয়ন্ত্রণে রাখতে এসব পদ্ধিত অনুসরণ করার পাশাপাশি, বছরের বাকি সময়ের মতো সঠিকভাবে মুখের যত্ন নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ।  মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য ইফতারের পর হালকা গরম পানিতে এক চামচ দারুচিনির গুঁড়া মিশিয়ে গড়গড়া করতে পারেন, মুখে কিছুক্ষণ এলাচ রেখে দিতে পারেন। এছাড়াও  ইফতারের পর ২-৩টি পুদিনা পাতা নিয়ে চিবোতে থাকুন। পাশাপাশি খেতে পারেন পুদিনা পাতার শরবত।

Side banner